Surekha Yadav-First Indian Woman LOCO Driver-Untold Story


Surekha Yadav-First Indian Woman LOCO Driver-Untold Story

আজ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। যে রাঁধে সে চুল ও বাঁধে-কথাটা আজ প্রমাণিত।আজ মেয়েরা সামলাচ্ছে এমন বেশ কিছু কাজ যা বেশ কিছু বছর আগেও ছিল অকল্পনীয়।সেই সাহসিক কাজের মানসিক দৃঢ়তা দেখিয়ে পথিকৃৎ হওয়া প্রথমাদের কৃতিত্ব অনস্বীকার্য। তেমনই এক প্রথমা এই সুরেখা যাদব।'Women don't drive railway engines'-এই উক্তিটি ভুল প্রমাণ করা সুরেখা যাদব ছিলেন ইন্ডিয়ান রেলওয়ের প্রথম মহিলা ট্রেন ড্রাইভার।শুধু ভারত নয় এশিয়ার প্রথম মহিলা ট্রেন ড্রাইভার হিসাবে তিনি চালান 'Deccan Queen'। আর এই কাজের জন্য তাঁকে ২০১১ সালের ৮ই মার্চ অর্থাৎ আন্তর্জাতিক নারী দিবসেই সম্মানিত করা হয় সেন্ট্রাল রেলওয়ে যোনের হেড কোয়ার্টারে, আর সম্মানিত করেন মুম্বাইয়ের মেয়র শ্রদ্ধা যাদব মহাশয়া।


মাননীয়া মমতা বন্দোপাধ্যায় দেশের রেল মন্ত্রী থাকাকালীন ভারতের ৪টি মেট্রো সিটিতে প্রথম চালু করেছিলেন 'Ladies Special'। আর সেই 'Ladies Special' এর চালক ছিলেন এই সুরেখা যাদব।



১৯৬৫ সালের ২রা সেপ্টেম্বর জন্ম হয় তার মহারাষ্ট্রের সাতারায়। পাঁচ ভাই বোনের ছোটো ছিলেন তিনি।'Saint Paul Convent High School, Satara' থেকে স্কুল জীবন শেষ করে ভোকেশনাল ট্রেনিং ও ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেন করাদ গভর্নমেন্ট পলিটেকনিক কলেজ থেকে।ইন্ডিয়ান রেলওয়েতে চাকরি পেয়ে যাবার পর আর উচ্চতর পড়াশুনা করা সম্ভব হয়নি তার ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও। রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ড, মুম্বাইয়ে ১৯৮৭ সালে তার ইন্টারভিউ হয়।সিলেকশনের পর সেন্ট্রাল রেলওয়ের ট্রেন অ্যাসিস্ট্যান্ট ড্রাইভার হিসাবে ১৯৮৮ সালে কল্যাণ ট্রেনিং স্কুলে যোগ দেন,সেখানে তাঁর ৬ মাসের ট্রেনিং হয়।ড্রাইভার হিসাবে আত্মপ্রকাশ হয় ১৯৮৯ সালে।প্রথম যে ট্রেনটির তিনি দায়িত্ব পান সেটি ছিল একটি মালগাড়ি,যার ইঞ্জিনের অবস্থা,সিগনাল ও সেই সংক্রান্ত কাজের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল তাকে।১৯৯৬ সালে প্রথম মালগাড়ি চালান তিনি।পদোন্নতি হয়ে ২০০০ সালে তিনি প্রথম প্যাসেঞ্জার ট্রেন চলাল।নিজেকে পদে পদে প্রমাণ করেন তিনি।২০১১ তে এক্সপ্রেস মেইল ড্রাইভারের দায়িত্ব পান তিনি।কর্মজীবনে নিজের অর্জিত সম্মানে যখন যে কাজটিই করেছেন,করেছেন তা নিষ্ঠার সঙ্গে,সে মালগাড়ি হোক বা এক্সপ্রেস।বর্তমানে তিনি Driver's Training Centre (DTC) তে সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর ও শিক্ষিকা হিসাবে আছেন।তিনি যোগদানের আগে ইন্ডিয়ান রেলওয়ে ছিল পুরোটাই পুরুষতান্ত্রিক। তিনিই এক্ষেত্রে প্রথমা। ১৯৯০ সালে বৈবাহিক সূত্রে আবদ্ধ হন শঙ্কর যাদব মহাশয়ের সাথে।যিনি পেশায় পুলিশ ইন্সপেক্টর অফ মহারাষ্ট্র।কৃতিত্ব সেই পরিবার,তার অভিবাবক ও স্বামীর ও, যাঁরা গতানুগতিকতার বাইরে বেরোতে পেরেছেন।আমরা চিরাচরিত কে অনুসরণ করতেই অভ্যস্ত। তাঁকে দেখেই অনুপ্রাণিত হয়ে বহু মহিলারা এগিয়ে এসেছেন পরবর্তীতে।নানান চলতি পেশার মত ট্রেন ড্রাইভার হবার বাসনাও জাগে অনেকের মনে।সেই সাহসিকতাকেই পাথেয় করে বর্তমানে ৫০এরও‌ বেশি মহিলা ট্রেন ড্রাইভার আছেন আমাদের দেশে।


যেখানে বহু মেয়েকে ন্যুনতম শিক্ষা থেকে বঞ্চিত করে শুধুমাত্র বিয়ের পণ্য হিসাবেই বড়ো করে  তোলা হত সেখানে আজ চিরাচরিত প্রথার জগদ্দল পাথর সরিয়ে এগিয়ে আসা মহিলাদের কুর্নিশ জানাতে ইচ্ছা হয়।মনে হয় দিন বদলাচ্ছে, বদলাবেও।
বলতে ইচ্ছা হয় 'এই আকাশে আমার মুক্তি আলোয় আলোয়.....'

ছবি: গুগল থেকে সংগৃহীত

মন্তব্যসমূহ

Popular Posts

Top 10 Rajbari near Kolkata-Zamindar Houses in Bengal-Heritage Home Stay-Dayout Plan-Weekend Tour

Garalgacha Jamidar Bari-Garalgacha Babuder Bari-Bonedi Barir Pujo

Gobardanga Jamidar Bari-Prasannamoyee Kali Mandir-Gobardanga Kalibari

Gobardanga Prasannamoyee Kali Mandir-Gobardanga Kalibari